অলির বিস্ফোরক মন্তব্যে অসন্তোষ ২০ দলে

অলির বিস্ফোরক মন্তব্যে অসন্তোষ ২০ দলে

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:০১ ১ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৪:২৩ ১ আগস্ট ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, জামায়াত ও ২০ দলীয় জোট নিয়ে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির-(এলডিপি) একাংশের সভাপতি ড. (অব.) অলি আহমেদের (বীর বিক্রম) বিস্ফোরক মন্তব্যের কারণে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে ২০ দলে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে জানা গেছে, কর্নেল অলি আহমেদ একজন স্পষ্টবাদী নেতা। তিনি আত্ম অহংকারী নেতা হিসেবেও পরিচিত। খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে তিনি ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে থাকেন না। জামায়াত, বিএনপি ও ২০ দলীয় জোট সম্পর্কে তার বক্তব্যের কারণে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলের মধ্যে অনেক প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির দায়িত্বশীল এক নেতা বলেন, কর্নেল অলি আহমেদ একজন অহংকারী নেতা। তিনি নিজেকে সব সময় অনেক কিছু মনে করেন। তিনি নিজের স্বার্থে রাজনীতি করেন। তার এই স্বার্থপরতার কারণে সিনিয়র রাজনীতিবিদ হওয়া সত্ত্বেও তাকে বিএনপি ও ২০ দলের কেউ মূল্যায়ন করেন না।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে একজন প্রবাসী বাংলাদেশি সাংবাদিকের পরিচালিত দ্য গ্রিন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে অলি আহমেদ দেশের চলমান রাজনীতিসহ বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সম্পর্কে সাক্ষাৎকারে অলি আহমেদ বলেন, ড. কামালের নেতৃত্বে জাতীয় কোনো নামে যে জোট গঠন করা হয়েছিল সেটি মূলত বিএনপিকে নির্বাচনে নেয়ার জন্য। তাদের মিশন ছিল বিএনপি জোটকে চিরতরে ক্ষমতার বাইরে রাখা। এর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন কিছু মেও মেও করা বিএনপি নেতা।

তিনি বলেন, আমাকে যখন ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেয়ার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল, তখন আমি সরাসরি না করে দিয়েছিলাম। কারণ ড. কামাল হোসেন একজন নামকরা আইনজীবী। তার সঙ্গে আইন পেশা মানায়, রাজনীতি নয়। ঐক্যফ্রন্ট গঠিত হয়েছিল মূলত বিএনপির সঙ্গে প্রতারণা করার জন্য বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

২০ দলীয় জোটের বৈঠকে যাদের দাওয়াত দেয়া হয় তাদের যোগ্যতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, ২০১৮ সালের নির্বাচনের পর তিনি মিটিংয়ে যাননি এবং শেষের কয়েকটি মিটিংয়ে এলডিপির কোনো প্রতিনিধি পাঠানো হয়নি বলেও জানান। কেন পাঠাননি জানতে চাইলে তিনি বলেন, যাদের সঙ্গে বৈঠক হয় তারা আমাদের সমকক্ষ নন বলে যায়নি। যেখানে খালেদা জিয়া নেই সেখানে আমার যাওয়া সমীচীন নয়। আর পজিশন কি সেটা আমি নিজেই জানি না।

তার এই বক্তব্যের পর থেকেই ২০ দলীয় জোট এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এর মধ্যে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে। 

অলি আহমেদের এমন বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, ২০ দলের অবস্থা আগের মতোই আছে এবং নিয়মিত বৈঠক হয়। অলি আহমেদ যা বলেছেন সেটা তার ব্যক্তিগত অভিমত। তবে তিনি সাক্ষাৎকারে বলেছেন তাকে জোটের প্রধান সমন্বয়ক করা হয়েছিল। এটা সঠিক নয়। যদিও কোনো বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত কখনো হয়নি। অবশ্য তিনি সিনিয়র হিসেবে নির্বাচনের আগে জোটের বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন এবং মিডিয়ায় কথা বলতেন।

এ বিষয়ে ড. কামাল হোসেন বলেন, এসব বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই। আমি এসব বিষয়কে কোনো গুরুত্ব দিচ্ছি না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই/এইচএন