Alexa অভিশংসনের অভিযোগ ‘অবৈধ ও নির্লজ্জ’: ট্রাম্পের আইনজীবী দল

অভিশংসনের অভিযোগ ‘অবৈধ ও নির্লজ্জ’: ট্রাম্পের আইনজীবী দল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:১৪ ১৯ জানুয়ারি ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়াটি গণতন্ত্রের ওপর একটি বিপজ্জনক আক্রমণ বলে মন্তব্য করেছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের আইনজীবী দল।

শনিবার অভিশংসন বিষয়ে দেয়া প্রথম আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ায় এ দাবি করে ট্রাম্পের আইনজীবীদের দলটি।

ছয় পৃষ্ঠার নথিতে ট্রাম্পের আইনজীবীরা বলেন,  অভিশংসন সংশ্লিষ্ট সব প্রতিবেদন ও নথিপত্রই ট্রাম্পের বিরুদ্ধে কোনো অপরাধের অভিযোগ আনতে ব্যর্থ হয়েছে। এগুলো ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করার ‘নির্লজ্জ’ চেষ্টা ছাড়া কিছুই নয়।

অভিশংসনের অভিযোগের সপক্ষে ডেমোক্রেটদের যুক্তিতর্ক সম্বলিত নথি জমা দেয়ার পর প্রেসিডেন্টের আইনজীবী দলের এ প্রতিক্রিয়া জানায়।

বিবিসি তথ্যানুযায়ী, মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে অভিশংসন প্রস্তাব পাস হয়ে বিচার প্রক্রিয়া উচ্চকক্ষ সিনেটে ওঠার পর বৃহস্পতিবার ডেমোক্র্যাটরা প্রক্রিয়ার সারসংক্ষেপ সিনেটে জমা দেন। সেখানে তদন্ত কমিটির প্রধান অ্যাডাম শিফ ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগগুলো উচ্চস্বরে পড়ে শুনিয়ে বিচার প্রক্রিয়া শুরু করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ট্রাম্প হচ্ছেন তৃতীয় প্রেসিডেন্ট, যাকে অভিশংসন নিয়ে সিনেটে বিচারের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার ও কংগ্রেসের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগ এনেছে ডেমোক্রেট নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদ।

রিপাবলিকান এ প্রেসিডেন্ট অবশ্য শুরু থেকেই যে কোনো ধরনের অন্যায়ে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করে আসছেন। সম্প্রতি অভিশংসন মামলাকে ‘ধাপ্পাবাজি’ বলেও অ্যাখ্যা দিয়েছেন তিনি।

রিপাবলিকান সংখ্যাগরিষ্ঠ সিনেটের সদস্যরা অভিশংসন মামলায় জুরির দায়িত্ব পালন করবেন। বিচারে ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হবে কিনা, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন তারা।

ট্রাম্পের কর্মকাণ্ডকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতাদের জন্য ‘সবচেয়ে বাজে দুঃস্বপ্ন’ বলেও অভিহিত করেছেন তারা।

উল্লেখ্য, আগামী সপ্তাহে শুরু হতে যাচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়ার বিচার কার্যক্রম। ক্ষমতার অপব্যবহার ও কংগ্রেসের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে অভিশংসনের এ উদ্যোগ নেয়া হয়। এর আগে নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসিত হন ট্রাম্প। এবার, উচ্চকক্ষ সিনেটে দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে অভিশংসিত হলে প্রেসিডেন্ট পদ ছাড়তে হবে তাকে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ