অবশেষে কোরবানি হল ১৪ লাখ টাকার ‘ভাগ্যরাজ’

অবশেষে কোরবানি হল ১৪ লাখ টাকার ‘ভাগ্যরাজ’

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৩:৫৮ ৪ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৬:৪৩ ১৯ আগস্ট ২০২০

ছবিঃ সংগৃহীত

ছবিঃ সংগৃহীত

গত দুই কোরবানি ঈদজুড়েই আলোচনায় এসেছে মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ার খামারী ইতি আক্তারের গরু ‘ভাগ্যরাজ’। গত বছরের ঈদুল আজহায় অবিক্রিত অবস্থায় থাকলেও এবার বিক্রি হয়েছে প্রায় ৫২ মণ ওজনের এই বিরাট আকারের গরু।

রাজধানীর মিরপুরে আতিয়ার রহমান নামের একজন ব্যবসায়ী গরুটি কিনেছেন। মোট ১৪ লাখ দশ হাজার টাকায় গরুটি কিনেন সেই ব্যবসায়ী। সোমবার সকালে কোরবানি করা হয় ভাগ্যরাজকে।

আতিয়ার রহমান জানান, আমার ছেলে এবার আমাকে অন্যবারের চাইতে বড় গরু কোরবানি করার অনুরোধ করে। আমরা আগে ৮/৯ মণ ওজনের গরুই কিনতাম। তবে এবার আমার ছেলের অনুরোধে একটু বড় কিনতে রাজি হই।

আতিয়ার রহমানের একমাত্র ছেলে মোহাম্মদ উল্লাহ তাকে প্রথম ইউটিউবে সাটুরিয়ার খামারি ইতি আক্তারের ভাগ্যরাজকে দেখান। সেখানে দেখার পর তিনি গরুটি কেনার সিদ্ধান্তে আসেন। এরপর ঈদের আগের দিন মধ্যরাতে হাজির হন ইতি আক্তারের বাড়িতে। অনেকটা মানবিক দিক বিবেচনা করে এত দামে গরুটি কেনার সিদ্ধান্ত নেন বলে জানান তিনি।

১৪ লাখ টাকার ‘ভাগ্যরাজ’

এর আগের ঈদেও ভাগ্যরাজকে বিক্রির কথা ভেবেছিলেন খামারি ইতি আক্তার। তবে নানা জটিলতায় তা সম্ভব হয়নি। এবার প্রায় ১৪ লাখ টাকায় আতিয়ার রহমানের পরিবার কিনে নেন ভাগ্যরাজকে। বিক্রির সময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন খামারি ইতি আক্তার।

আতিয়ার রহমানের কন্যা পুষ্প রহমান জানান, সন্তানতূল্য ভাগ্যরাজকে শেষবারের মত দেখার জন্য নিজের শিশুকে বাড়িতে রেখে আসেন ইতি।

জানা গেছে, ইতি আক্তার সাভারের শেখ হাসিনা যুব উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে গরু মোটাতাজাকরণের প্রশিক্ষণ নেয়। এর আগে অভাবের সংসারে তার অন্য একটি গরু লক্ষীসোনা ভাগ্যবদল করে দেয়। এছাড়াও রাজাবাবু নামে আরেকটি বিরাট গরু বিক্রি করে সে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচএফ