Alexa অচেনা ফোনে পতিতাপল্লী থেকে রক্ষা পেল কিশোরী

অচেনা ফোনে পতিতাপল্লী থেকে রক্ষা পেল কিশোরী

জামালপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২৩:৪৬ ১১ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ২৩:৫২ ১১ নভেম্বর ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ঢাকা থেকে জামালপুরের রাণীগঞ্জ পতিতাপল্লীর ২নং বাড়ির সর্দারনি শিউলির কাছে এক কিশোরীকে বিক্রি করে জনৈক ব্যক্তি। এতে কিশোরীকে বাধ্য করে আটদিন ধরে দেহব্যবসায় সম্পৃক্ত রাখেন সর্দারনি। তবে অচেনা ব্যক্তির একটি ফোনের মাধ্যমে পতিতাপল্লী থেকে রক্ষা পেয়েছে ওই কিশোরী।  

সোমবার বিকেল সর্দারনির কাছে থেকে ১২ বছরের কিশোরীকে উদ্ধার করে বাবা-মায়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী কিশোরীর গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনার কলমাকান্দা থানার কুয়ারপুরে।

মেয়ের বাবা জানান, বাবা-মার সঙ্গে ঢাকার ডেমরায় কুতুবখানা রোডে থাকতেন ভুক্তভোগী কিশোরী। ২ নভেম্বর বিকেল থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। রোববার রাতে কিশোরীর নানার মোবাইলে অচেনা এক ব্যক্তি ফোন করে জামালপুর পতিতাপল্লীতে কিশোরী রয়েছে বলে জানায়। সোমবার সকালে জামালপুর সদর থানায় অভিযোগ করেন কিশোরীর বাবা। পরে অভিযান চালিয়ে সর্দারনি শিউলির কাছ থেকে কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়। 

তিনি আরো জানান, যার কাছ থেকে কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়েছে, তাকে আটক করা হয়নি। 

জামালপুর থানার ওসি সালেমুজ্জান জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে কিশোরীকে উদ্ধার করেন টিএসআই আবুল হোসেন। পরে তাকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ