অগ্নিকাণ্ডের সময় করণীয় আমলসমূহ

অগ্নিকাণ্ডের সময় করণীয় আমলসমূহ

ধর্ম ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:২৪ ৫ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ১৪:৩২ ৫ এপ্রিল ২০২০

সাধারণত অসতর্কতায় অগ্নিকাণ্ড ঘটে থাকে। আবার আল্লাহর অবাধ্যতার মাত্রা চরম হলেও আল্লাহর পক্ষ থেকে নানা ধরনের আজাব-গজব নাজিল হয়। -ফাইল ফটো

সাধারণত অসতর্কতায় অগ্নিকাণ্ড ঘটে থাকে। আবার আল্লাহর অবাধ্যতার মাত্রা চরম হলেও আল্লাহর পক্ষ থেকে নানা ধরনের আজাব-গজব নাজিল হয়। -ফাইল ফটো

যে কোনো অগ্নিকাণ্ডের সময় আমাদের রব, সৃষ্টিকর্তা, পালনকর্তা, রাহমানুর রাহিম, গাফরুর রাহিম, মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালার কাছে সাহায্য চেয়ে আমরা যে আমলগুলা করবো। 

ইনশাআল্লাহ! আমলগুলোর মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালা অগ্নিকাণ্ডের ক্ষতির হাত থেকে আমাদের সবাইকে রক্ষা করবেন। যেমনিভাবে রক্ষা করেছিলেন হজরত ইব্রাহিম (আ.)-কে।

সাধারণত অসতর্কতায় অগ্নিকাণ্ড ঘটে থাকে। আবার আল্লাহর অবাধ্যতার মাত্রা চরম হলেও আল্লাহর পক্ষ থেকে নানা ধরনের আজাব-গজব নাজিল হয়।

আরো দেখুন>>> করোনা থেকে সুরক্ষিত থাকতে জরুরি ৪ আমল

দুনিয়ার বিপদ-আপদ, আজাব-গজব থেকে বেঁচে থাকতে আল্লাহর স্মরণের বিকল্প নেই। তাই কোথাও আগুন লাগলে মহান আল্লাহর সাহায্য প্রার্থনা করা জরুরি।

আগুন নেভাতে আল্লাহ তায়ালার ছোট্ট তাসবিহ-ই যথেষ্ট। যদি কোথাও আগুন লাগে তবে এ তাসবিহ উচ্চ স্বরে পাঠ করা। আর তা হলো-

اَللهُ اَكْبَر

উচ্চারণ : আল্লাহু আকবার

অর্থ : আল্লাহ মহান।

হজরত ইব্রাহিম আলাইহিস সালামকে স্পর্শ না করতে আগুনকে আল্লাহ যে নির্দেশ দিয়েছিলেন, অগ্নিকাণ্ডের সময় এ দোয়া পড়ে আল্লাহর সাহায্য কামনা করা-

يَا نَارُ كُونِي بَرْدًا وَسَلَامًا عَلَىٰ إِبْرَاهِيمَ

উচ্চারণ : ‘ইয়া নারু কুনি বারদাও ওয়া সালামান আলা ইব্রাহিম।’ (সূরা : আম্বিয়া, আয়াত : ৬৯)।

অর্থ : ‘হে আগুন! তুমি ইব্রাহিমের জন্য শীতল ও নিরাপদ হয়ে যাও।’

আজান দেয়া : আগুনের তীব্রতা যদি বেড়ে যায় তবে উচ্চ স্বরে আগুন নেভানোর নিয়তে আজান দিলেও আল্লাহর রহমতে আগুন নিভে যায়।

মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা মুসলিম উম্মাহকে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের আগুন নেভাতে উচ্চ স্বরে আল্লাহ তায়ালার নামের তাসবিহ, পবিত্র কোরআনের উল্লেখিত আয়াত ও আজান দেয়ার তাওফিক দান করুন। আল্লাহর আজাব-গজব থেকে বেচে থাকতে তার বিধান পালনের তাওফিক দান করুন। আমিন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে